উৎপল দত্ত

প্রথম প্রকাশ £ জ্যৈষ্ঠ ১৩৭০ / জুন ১৯৬৩

প্রচ্ছদ : প্রশাস্ত ভৌমিক

এই নাটক অভিনয় করতে হলে পঁচিশ টাক! রয়ান্টি পাঠিয়ে শোভা দত্ত, ৪০1২৪ নেতাজী সুভাষ রোঙ ঞলিকাতা-৭*০০৪০ হইতে অনুমতি লইতে হইবে

সর

এস. দত্ত, ১৪ রমানাথ মজুমদার স্রাট, কলিকাতা-৭০ ০০০৯, জাতীয় সাহিত্য পরিষদ কর্তৃক প্রকাশিত, হারাধন ঘোষ কর্তৃক বীণাপাণি প্রেস ২, ঈশ্বর মিল বাই লেন, কলিকাভা-৭০০০০৬ হইতে মুকিত!

বাংলা সাধারণ রংগালয়ের শতবাধিকীতে প্রণাম করি দেই আশ্চর্য মানুষগুলিকে-_ধাহার! কুষ্ঠগ্রস্ত সমাজের কোনো!নিয়ম মানেন নাই, সমাজও ধাহাদের দিয়াছিল অপমান লাঞ্চনা যাহার! মৃতসুদ্দিদের পৃষ্ঠপোষকতায় থাকিয়াও ধনীর মুখোস টানিয়া খুলিয়া দিতে ছাড়েন নাই ধাহার! পশুশক্তির ব্যার্দিত মুখগহবরের সম্মুখে টিনের তলোয়ার নাঁড়িয়া পরাধীন জাতির হৃদয়-বেদনাকে দিয়াছিলেন বিদ্রোহ মৃত্তি॥ যাহারা বহু পত্রপত্রিকা, বহু বাচস্পরতি- শিরোমণি, বছ রাঁজা-মহারাজার শত পদাঘাতে জর্জরিত, ধাহার! অপাংক্তেয় ছোটলোকের আশীর্বাদ-ধন্য, ধাহারা ভালবাসার বিশাল আলিংগন উন্মুক্ত করিয়া জনগণের গভীরে ঘ্বুরিয়া বেড়াইতেন। ধাহারা স্থগ্িগাড়া, বেপরোয়া, বাধনহার1। ধাহারা মাতাল, উদ্দাম, স্ট্টি় নেশায় উন্মাদ ধাহাদের মগ্ভসিক্ত অন্গুলিস্পর্শে ছিল বিশ্ব- কর্মার যাহ ধযাহাদের উল্লসিত প্রতিভায় স্ট্টি হইল বাঙালির নাট্যশালা" জাতির দর্পণ, বিদ্রোহের মুখপাত্র ধাহারা আমাদের শৈলেন্দ্র-সদৃশ পৃর্বনথরী ইতি--প্রণতঃ উৎপল দত

“বক্তা অভিনেতা যেরূপ আদর পান--এরূপ আদর আর কেহই পান না বলিলে অত্যুক্তি হয় ন1;? কিন্তু আবার অভিনেতা যেরূপ নিন্দার ভাজন হন, সেরপও আবার কাহারও অদৃষ্টে ঘটে না। রাজার সহিত একত্রে ভোজন, উচ্চপদস্থ ব্যক্তির সহিত সমভাবে ভ্রমণ--একদিকে এত আদর, আবার অপর দিকে অভিনেতার শবদেহের সৎকার-স্থান পাওয়া কষ্টকর হয় ।-*"জীবিত অবস্থায় তাহাদের প্রতি কিরূপ বিদ্বেষ দ্বণা প্রদণিত হইয়াছে শুনিলে হৃদয় বিগলিত হয়।-**শোনা যায় একদিন একজন সঙ্গীতজ্ঞ সুরঅষ্টা মহাশয় পথে যাইতে যাইতে আক্ষেপ করিয়াছিলেন যে, হায়! উচ্চ অট্রালিকায় আমারই রচিত গান গীত হইতেছে, কিন্তু আমার এই দারুণ শীতে বস্ত্র নাই, ক্ষুধা! নিবারণের একখানি রুটি নাই !**সকল দেশেই ধন্মযাজকের চক্ষে অভিনেতা ঘ্বৃণিত।***ঘোরতর ধন্মবিদ্বেষ সত্বেও জগতের রঙ্গভূমি বধিত হইয়! আসিতেছে ।” শিরিশচজ্ঞ

“দেখি আজকালকার সব নতুন নতুন অভিনেতা অভিনেত্রী, সুশিক্ষিত, সুসজ্জিত, কত নতুন নাটক, কত দর্শক, কত হাততালি, সোরগোল, হৈ-হৈ, সেই ফুটলাইট, সেই দৃশ্যের পর দৃশ্য, সেই যবনিকা পড়ার সময়ে ঘণ্টার ঢং টং শব্দ আর কত কথাই না৷ মনে পড়ে! আমরাও তো একদিন এমনি ক'রে সাজতেম, সেই সেকালের মত দর্শক, সেই সেকালের মত বঙ্গসাথী, সেকালের সাজপোষাক, সেকালের নাটক, সেকালের গ্যাসের ফুটলাইট,সেকালের আবহাওয়া **আমি সেদিনের কথ] কিছু বলবে", বলবার চেষ্টা করবে! ! সরল সত্য কথা, য! পড়ে আজকালকার পাঠক দর্শক বুঝবেন, কি মাটির তাল নিয়ে, পুকুর থেকে পাক তুলে-_ এদেশে বার! থিয়েটারের স্ঠি করেছিলেন তার কেমন সব পুতুল গড়েছিলেন ; এবং তাদের হাতের সে গড়। পুতুল কি করে কথ। কতো, &্রেজের ওপর চলতো। ফিরতো, দর্শকগণকে আনন্দ দিত, তৃপ্তি দিত 1”

বিনোদিনী

পিপলস্‌ লিটল থিয়েটার্‌ কর্তৃ'ক প্রথম অভিনীত

রুবীজ্দসদন, ১২ই আগস্ট, ১৯৭১॥

রচন1 পরিচালনা উৎপল দত্ত সংগীত পরিচালন! _- প্রশাস্ত ভট্টাচার্য মাইকেল গানের কথা ] জ্যোতিরিক্দ্রনাথ অমর দত্ত আলোক সস তাপস সেন মঞ্চসঙ্জা _-- মনু দত্ত যন্ত্র সগীত _ রমেশ মিশর, শস্তু দাস, কালী নন্দী প্রশাত্ত ভট্টাচার্য প্রথম রজনীর জভিনেতৃবৃচ্দ বীরকৃষ্ণ দা মহাধনী সমীর মজ্বমদার ময়ন! রাত্তার মেয়ে ॥। ছন্দ চট্টোপাধ্যায় ( পরে ইন্দ্রাণী লাহিড়ী ) মধু মেথর মুকুল ঘোষ দি গ্রেট বেজল অপেরার অভিনেতবৃন্দ বন্ুন্ধর! [ আঙুর ] শোভা সেন কামিনী [ পেয়ারা ] সবিতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেণীমাধব [ কাণ্ডেন ] উৎপল দত্ত হরবল্লভ সত্য বন্দ্যোপাধ্যায় জলদ শাস্তিগোপাল

মুখোপাধ্যায়

গোবর ভান্ু মল্লিক

যছুগোপাল শ্যামল মলিক নটবর আগু সাহা ১) গী

প্রিয়নাথ ইয়ং বেঙ্গল অমিত বনু (পরে মুণাল ঘোষ) মুদী কনক মেত্র নদের চাদ বাচস্পুতি চিত্ত দে গুণ্ডা মণ্ট, ব্রহ্ম

মি ঞঁ নত ভিক্ষুক নন্দছুলাল দাস মোয়াওয়ালা | সনৎ গাঙ্গুলী ফুলওয়াল। প্রণব পাল বরফওয়াল] মণ্ট, ব্রহ্ম পাইক অরুণ দে

আলোক ঘোষাল

যুবক বিশ্বনাথ সামস্ত সরবতওয়াল! রজত ঘোষ ল্যান্বার্টী ডেপুটি কমিশনার প্রতীক রায়

নাটকের স্থান ১৮৭৬এর মোকাম কলিকাতা চীৎপুর, বৌবাজার এবং শোভাবাজারস্থ নাট্যশাল।

১৮৭৬ সনই সাত্রাজ্যবাদের নিজমুখে মসীলেপনের কুখ্যাত বংসর। বৎসর বাংল! নাট্যশালার টিনের তলোয়ার দেখিয়া ভীত সন্ত্রস্ত বৃটিশ সরকার অডিগ্ঠান্স জারী করিয়া নাট্য নিয়ন্ত্রণের নামে নাটাশালার ক্রোধ করিবার ব্যবস্থা করে

1 এক মঞ্চজোড়! এক বিরাট পোস্টার

সপ পস সপ পপ | পর পাস সর পার ০০

হে হৈব্যাপার! রেরৈকাগ্! দ্বি গ্রেট বেংগল অপেরা শোভাবাজার গ্রাণড প্রদর্শন £ 4১602100101 016952 আসিতেছে £ 09221175 রোহীন্দ্র চৌধুরীর “ময়ুরবাহন নাটক” [১1025 01 4১000155101 [5901৮605625 £ 5. 4 11115001955 3 1২9, 2 96500730. 01855 8 17২5. ] বীরকৃষ দ1-73111511510108 702৮7. স্বত্বাধিকারী-_01090115607

[ এক আধটা গ্যাসের বাতি টিম টিম করে জলছে। নটবর নামক শীর্ধ যুবক পোস্টার সাটা শেষ করে মই থেকে নামে। নীচে মই ধরে দাড়িয়েছিলেন বেণিমাধব ওরফে কাণ্ডেনবারু, মদের ঘোরে বেসামাল আর বেশিবাবুর

০০ পপ | আস

১৯ টিনের তলোয়ার

পায়ের কাছেই ম্যানহোল থেকে মাথা বার করে বালতি- ভন্তি ময়ল] তুলছে একজন মেথর | ] বেণি॥ যা এবার মেছোবাঁজারের হাঁড়িহাটায় একটা মারবি, আর চোরবাগানের মোড়ে একটা, তারপর শুয়ে পড়। ভোর হতে দেরী নেই আর নটবর আপনাকে ধরে ধরে নিয়ে যাবো না? বেণি যা, যা, ফকডেমি করিস নে। সামান্য চার পাইট বাংলায় আমার বট্‌কেরা নেশাও হয় না। [ নটবর মই কীধে প্রস্থান করে। বেণি পোস্টারে বিভোর হয়ে দু'পা পিছোন ভাল করে দেখতে মেথর এক বালতি ময়লা প্রায় তার পায়ে ঢেলে দিতে তিনি চমকে ওঠেন ] মেথর মাপ করবেন বাৰু। বেণি॥ ঠিক আছে, ঠিক আছে। মেথর কলকাতার গরীবদের বিষ্ঠা বাবুর গায়ে দিলাম বেণি॥ দেখুন, ওট| পড়তে পারছেন ! মেখর পড়তে জানি না। বেণি॥ ভাবছিলাম কেমন লেখা হয়েছে, সেটা আপনি থিয়েটার দেখেন ?

মেথর না। বেণি॥ কেন? মেথর বুঝি না।

বেণি॥ দেখতে না গেলে কি করে জানেন বোঝেন না? €মথর আমি কলকাতার তলায় থাকি।

' টিনের তলোন্নার ১৯ [ ম্যানহোলের ভেতরে অংগুলি নির্দেশ করে ] বেণি॥ আপনি মাইকেল মধুস্দন দত্তের কাব্য পড়েছেন ? মেথর কেসে? * বেণি॥ মহাকবি ছুই বৎসর হয় আমাদের সকলকে শোকসাগরে নিমজ্জিত করে তিনি মহাপ্রয়াণ করেছেন শুনুন বাধিল তুমুল রণ দেবরক্ষোনরে অন্থরাশিসম কন্ব. ঘোষিল চৌদিকে অযূত, টংকারি ধনুঃ ধনূর্ধর বলী রোধিল শ্রবণপথ গগন ছাইয়। উড়িল কলম্বকুল, ইরম্মদতেজে ভে্দি বর্ম, চর্ম, দেহ, বহিল প্লাবনে শোণিত ! পড়িল রক্ষোনরকুল রথী, পড়িল কুগ্তর পুঞ্জ, নিকুঞ্জে যেমতি পত্র প্রভগ্রন বলে; পড়িল নিনাদি, বাজীরাজী, রণভূমি পুরিল ভৈরবে কেমন লাগল ? মেথর জঘন্য | বেণি॥ হঈীশ। দেখুন, লুটিশে লেখা আছে ময়রবাহন নাটক আনিতেছে। আমার নাম বেণিমাধব চাটুষ্যে, ওরফে কাণ্তেনবারৃ। আমি বাংলার গ্যারিক ! ইগ্ডিয়ান মিরার পত্রিক! জানেন? মেথর॥ ন1। | | বেনি॥ সে পত্রিক! আমার একে! দেখে বলেছে, বাংলার গ্যারিক।

১২ টিনের তলোয়ার

কই গ্রেট নেশনেল থিয়েটারের অধেন্দু মুস্তাফিকে তো বলেনি যাক, আমি বেংগল অপের! দলের মাস্টার

মেথর আপনি চাটুষ্যে বামুন ?

বেণি॥ হ্যা। (মেথর আবার এক বালতি ময়লা সশকে ফেলে বেণিকে উত্যক্ত করে )

মের বামুন বলে আরেকটু দিলাম

বেণি॥ ঠিক আছে, ঠিক আছে।

মেথর বামুন আর বাবু, ছুই ভাঙা মংগলচণ্তী

| খানিক নীরবতা ]

বেণি হ্যা, বাবু ভেয়ের৷ অমনি আমি আগে যাত্রায় গাইতাম, বুঝলেন ? তা শামবাজারের চক্কোত্তিবাবুদের বাড়ি বিগ্যাসুন্দর পাল। হচ্ছিল। মেজোবারু পাঁচ ইয়ার নিয়ে যাত্রা! শুনতে বসেছেন আসরে মালিনী আর বিদ্ভা_-তোম বিগ্যান্তন্দর পাল1 কভি শুনা স্থায়? অ1পনি তো! বাঙালী-_মাক, মালিনী আর বিদ্যে “মদন আগুন জ্বলছে দ্বিগুণ” গান করে মুঠো মুঠো প্যাল। পাচ্ছে খছর যোলো। বয়সের ছুটো৷ ছোকর। সখী সেজে ঘুরে ঘুরে খ্যামটা নাচছে, আর ওদিকে বাবুদের হাতে রূপোর গেলাসে ব্রার্ডি চলছে, বাড়ির শালগ্রাম ঠাকুর পর্যস্ত নেশায় চুরচুরে। ক্রমে মিলনের মন্ত্রণা, গর্ভ, রাণীর তিরস্কার, চোরধর৷ মালিনীর যন্ত্রণার পালা এসে পড়লো মালিনী কাদতে কাদতে আসর সরগরম করে তুললো, বাবুর চমকা ভেঙে

গেল, দেখলেন কোটাল মালিনীকে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। এতে

ৰাবু বড় রাগত হলেন। “কোন ব্যাট!র সাধ্যি আমার কাছ

টিনের তলোয়ার ১.

থেকে মালিনীকে নিয়ে যায়”-_-এই বলে রূপোর গেলাসটি কোটালের রগ লক্ষ্য করে ছুড়ে মারলেন “বাপ” বলে কোটাল বসে পড়ল, আসর ভেঙে গেল। আমি সেজেছিলাম কোটাল এই এইখানে লেগেছিল গেলাসটা---

[ মেখর খানিক আগেই ম্যানহোলে ডুব দিয়েছিল

এবার বেণির হু'শ হয় তিনি একা শৃন্তে হাতড়ে তিনি শ্রোতাকে খোজেন ]

আরে? আজ বোধহয় বেশি টেনে ফেলেছি পষ& দেখলাম এখানে_! (মেথর মাথা তোলে) এই তো! কোথাস্ গেনলেন ?

মেথর যাবে আবার কোথায় ?

বেণি॥ ঠিক আছে, ঠিক আছে। (নীরবতা) আমি বামুন নই, দেখলেন ? আমার জাত হচ্ছে থিয়েটারওয়ালা, অভিনয় বেচে খাই আমার নিমাদ তো দেখেন নি। গিরিশ ঘোষের সাধ্য আছে অমন নিমঠাদ করে? আর গ্রেট নেশনেলের বর্চোর। আমেরা কি করেছে জানেন? আমাদের একট্রেস মানদানুন্দরীকে ফুসলিয়ে নিয়ে গেছে গেরান জ্বরিতে এব- ডাকশনের কেস হয়। মানদাকে আনি গড়েছি নিজের হাতে। ছিল সোনাগাছির বেশ্যা আমি তাকে নীলদর্পণে ক্ষেত্রমণি সাজাই তিল তিল করি ক্রমে প্রস্ফুটিত কুম্থমসম প্রকাশিল তিলোত্তমা আর বেটি আজ গ্রেট নেশনেলে চলে গেল ড্যাঙস ভ্যাঙুস করে এদিকে ময়ূরবাহন নাটক নামাই কি করে? অনুরাধার পার্ট! লেবে কে? আর যে দেখছেন

১৪ টিনের তলোয়ার

নুটিশের তলায় বারুর নাম_বারকৃষণ ফাঁসে শাল যে ছ্যাং ংডার কেত্তন শুরু করে দেবে সব জানতে পারলে ব্যাটার অক্ষর গোমাংস, যেখানে যাবে পেছনে মোদাগাড়ি ভরা . মলের বোতল চলে, সে শালা হলো স্বত্বাধিকারী আর আমি বাংলার গ্যারিক, বেনে মুত্সুদ্দির সামনে আমাকে গলবস্ত্ থাকতে হয়। হায় মাত? ভবমণ্ডলে ্বেচ্ছায় কে গ্রহে জন্ম, এই দশা যদি পরে? অসহায় নর, কলুষ কুহকে পারে কি গো! নিবারিতে? তাহলে আপনি নাঁটক দেখবেন ন1? মেথর কেন দেখব? বেল পাকলে কাকের কি? বাবুর! রোওয়াবি করবেন, বাজারের কসবি নিয়ে হলাহলি গলাগলি করবেন, আর এমন সব ভাষা বলবেন যা আমরা বৃঝিনা (ময়ল। ফেলে ) তার চেয়ে বাইজীর খ্যামটা ভাল। আমাদের বস্তির রামলীল। ভাল এই যে ময়ূর লাটক না কি বলছেন-_এট! কি লিয়ে লেখা? বেণি॥ মযূরবাহন কাশ্মীরের যুবরাজ গল্পটা হচ্ছে__ মেথর ধেত্ডেরি যুবরাজ ! মুখে রং মেখে চক্রবেড় ধুতি পরে, লাল-নীশ জোড়া আর ছত্রি পরে রাজাঁউজীর সাজো কেন ? এত নেকাপড়া করে টিনের তলোয়ার বেঁধে ছেলেমানুষী করে! কেন? বেণি॥ টিনের তলোয়ার ! ছেলেমাছুষী ? মেথর যা আছে! তাই সাজো না। গায়ে বিষ্ঠা আর কাদা! লেগে আছে দেখছে! ? | বেণি। ঠিক আছে, ঠিক আছে।

টিনের তলোয়ার ১৫.

মেথর সেটা দেখাতে নজ্জা হয় বুঝি? 'ভাই চকচকে পোষাক পরে চৌগৌপ্া দাড়ি এটে রবক সবক কিছু কবিতা বলে ধাপ্সা মারো। কই যুবরাজ ছেড়ে আমাকে লিয়ে লাটক ফাদতে পারবে? হে: চাটুজ্যে বামুনের জাত যাবে তাতে বেণি। উঈশ! এক এক বাক্য খরসান তরবারিসম বিধিছে বৃকে লিখিনু কি নাম মোর বিফল যতনে বালিতে, রে কাল, তোর. সাগরের তীরে ? ফেনচুড় জলরাশি আসে কিরে ফিরে মুছিতে তুচ্ছেতে ত্বরা মোর লিখনে ? মেথর দেত্তেরি! বেণি॥ ঠিক আছে, ঠিক আছে। [ নেপথ্যে নারীকণ্ঠের গান ] ছেড়ে কলকেতা বোন- হবে! পগার পার পুজিপাটা চুলোয় গেল, পেট চালানে! হোলো! ভার বেণি।? একার কণ্ঠস্বর? স্বরের কলকল্লোলে অলিকুল উঠিল গুপ্তরি, অমানিশার বক্ষ চিরি উষার চঞ্চল অভিসার, জগতে রসম্্ নামিল হরষে। কে মেয়েছেলেটা? মেথর ময়না বর্দিবাটির আলু, হাসনানের বেগুন, এলব বেচে পেট চালায় [ গান গাইতে গাইতে ময়না চলে স্টেজের ওপর দিয়ে ] ময়না আলু নিয়ে যাই বাড়ি বাড়ি ছু"ড়ি ধাড়ি বেরিয়ে বলে এই ঝাঁট। ঝাড়ি _. গিন্নীর! সর গ্রাউন, পরে-ছেভেছেন্মনুডি।_

ঠভ

টিনেয তলোয়ার

তখন গিক্নীরা সব যেতেন থিয়েটার

হাতে পায়ে আলতা দিষে হত কি বাহার

এখন মেম হয়ে আর দেখেন বাংল] থিয়েটার [ ময়নার প্ছেন পেছন বেশির প্রস্থান ]

দুই

[ চীতপুরে বেংগল অপেরার ঘরটি দৈনন্দিন শাশ্বতের সংমিশ্রণে বিচিত্র হয়ে আছে। দড়িতে ঝুলছে গামছণ, ধুতি, শাড়ির সংগে চোখ ধাধানো রাজবেশ ; একটি নড়বড়ে তক্তপোষের পাশে পেল্লায় এক সিংহাসন, ছুটি ছাতা কিছু বাঁকা তলোয়ার গলা- গলি করে আছে। হাঁড়ি, পাতিল, ভাড় এবং মুকুট, উক্তীষ, পু তির গয়না একত্রে ছড়ানো দেয়াল ঢাকা 'পড়ে গেছে নাগ পোস্টারে-যথা_

গ্রেট বেঙ্গল অপেরার | | গ্রেট বেগল অপেরার ভান্মতী চিত্তবিলাস রামাভিষেক

পশর্শ ০শ শি রস পা আসার

গ্রেট বেংগল অপেরার | | গ্রেট বেংগল অপেরার শমিঠ। মযুর বাছন

সপ অপ সা বির চক্র

পপ বে আপ এ. সা

এহেন নরককুণ্ডের মাঝে অভিনেতা জলদ দাড়িয়ে পাট মুখস্থ করার প্রয়াস চালাচ্ছে প্রমটার ( এবং যাবতীয় ফরমাশ-খাটার ভৃত্য ) নটবরের সহায়তায় অভিনেতা গায়ক যছুগোপাল এইমাত্র দম থেকে উঠে নিজের সাটটা উল্টেপান্টে দেখছেন

টিনের তলোয়ার ১৭

অভিনেতা হরবল্লভ সুখে খবরের কাগঞ্জ চাপা দিয়ে এখনো নিদ্রামগ্র। আর তক্তপোষে নিদ্রামপ্র বেশিমাধৰ গোবর নামক অভিনেত! গভীর মনোযোগে “ভারতসংক্কারক” পত্রিক! পড়ছে এবং নিমকি খাচ্ছে এক কোণে এক কর্ণেটবাদক তার বাদ্যন্ত্রটি ঘষেমেজে চকচকে করে তুলছে।

হারমোনিয়াম তবলা রয়েছে ঘরে অন্তকোণে বসে আছে কেতাদুরস্ত ইয়ংবেংগল পোষাক পর শ্রিয়নাথ, বগলে একতাড়। কাগজ ফিতে দিয়ে বাধা বহিদ্বারের কাছে টেবিলের ওপর এক প্রাচীন সেজবাতি, তার মাথা ঘে*ষে দেয়ালে এক পোস্টার-_

স্পা শশা ০৮১০ শ্পোপ নেও

সথুলভে ক্রয় 1 স্ুলভে বিক্রপ্ ! এমন দাও ছাড়িবেন না মোগল যুগের সেজবাতি বিক্রয়

শিস পাপ জিপ পা সস উপ ৯৯ - সপ শা ০. সা

পোস্টারে ছবিও আছে-_ছ্যতিবিচ্ছরক সেজবাতি তদ্দর্শনে পুলকিতা এক নারী | ]

জলদ মধুর সংগীত ! ঢালে প্রাণে অমুতের ধারা কিন্তু আজ কেমন” আজ কেমন***

নটবর কেন প্রাণ

জলদ্দ ( তৎক্ষণাৎ) কেন প্রাণ থেকে থেকে উঠে কেঁপে***উঠে কেপে'*উঠে কেঁপে" *্ধাড়া, দাড়া বলিস নে"''যেন কোন সুদূর প্রদেশ হতে পশে হৃদে করুণ ক্রন্দন |

নটবর শংকর শংকরের কথা এবার যছুদা আপনার ধরভাই

1 |

১৮ টিনের তলোয়ার

যত ( সচকিত ) হ্যা, হ্যা, কোন শিন, কোন শিন হচ্ছে?

জলদ জেগে ঘুমোচ্ছেন কেন! একের ছুই

নটবর প্রথম অংক। দ্বিতীয় গভাংক।

যছু॥ হ্যা, এই পেয়েছি বলো-_

জলদ যেন কোন সুদূর প্রদেশ হতে পশে হৃদে করুণ ক্রন্দন

যু কুঠার বৃথা কেন উৎকহ্িত মন? (পুনঃ মৃছ্ষ্বরে বলেন ) কুঠার বৃথা কেন উৎ্কগ্ঠিত মন? কি সব লেখে আজকাল কোন মানে হয় না! কুঠার বুথা আবার কি? পিলইয়ার ছোড়ার! উড়তে শিখেছেন কুঠার বৃথা

নটবর কথাটা কুমার কুমার, বৃথা কেন উৎকষ্ঠিত মন।

যছু॥ ও, কুমার এমন বাজে হাতের লেখা সাট লেখে কে?

নটবর এটা আপনার নিজের হাতের জেখা

যছু॥ ও--য়া।!

গোবর কাগজে লিখেছে “বেংগল অপেরার বেশ্যার নাচ !”

যু আরে থাম দিকি, এদিকে মহল! চলেছে আর*"**কি ? কি?

জলদ তা এতক্ষণ ঝেড়ে কাশছ না কোন ? (কাগজ কেড়ে নিয়ে পড়ে ) “বেংগল অপেরার বেশ্যার নাচ- গত বুহস্পতিবার রাত্রে আমরা বেংগল অপেরার সধবার একাদশী নাটক দেখিতে গিয়াছিলাম। অনেকানেক ভদ্রজনের সম্মুখে ইহারা! ষে অশ্লীল

ংগভংগী সোনাগাছির বেশ্তার নাচ করিলেন, তছুপযুক্ত

দৃষ্টে কাহার আহ্লাদ হয় %৮

যছু॥ না, তোর বাড়ীর মেয়েদের নাচানে। উচিদ্ত ছিল

বলদ “ইহাদের মৃূল গায়েন বেণিমাধব চাটুষ্যে-_”

টিনের তলোয়ার ১৪,

নটবর আস্তে, আন্তে--[ তক্তপোষে নিদ্রাচ্ছন্ন বেশিওক দেখায় ] জলদ ( মৃছুত্বরে ) “বেশিমাধব চাটুষ্যে মদ্যপান করিয়। মঞ্চোপরি টলিতে ছিলেন এবং এই দলের পোষ! বেশ্যা বন্ুদ্ধরা কাঞ্চনের বেশে কুৎসিত নৃত্য করিল 1” নটবর দিদিকে বেশ্যা বলল্‌ ! জলদ॥ শুনিতেছি ইহারা এইবার ময়ূরৰাহন পাল! খুলিবেন। আজিকালি অভিনেতারা বেশ্যাসহযোগে জাতি ধর্মের যে অচিস্তিতপৃব ক্ষতি করিতেছেন তাহা! ম্মরণ করিলে শয্যা কণ্টকি হয় ৷” যহু॥? এডিটর ! এডিটর! কাগজের এডিটর ! শোঁন-_ গান | “ওলেো রাঙা বউ, তোর] কেউ কাগজ পড়িস লো। মন্দ ভাল সকল লোকের কেচ্ছা দেখিস লো ঘোষ জ! বুড়োর কচি বউ বেরিয়ে গিয়েছে। গরানহাটার গলিতে সে বাসা নিয়েছে মরুৎ ব্যোম কাগজেতে লম্বা লিখেছে গংগ! নাইতে বোসেদের ছোট বউটা যায় ঘোমটার ভেতর খেমটা নাচ, আড়চোখেতে চায় এডিটর দেখেছে ত1, আর কি ছাড়ান পায়? বিছ্বেসাগর, রামমোহন আর কৰি মাইকেল কবে কখন করেছিলেন কি বে-আক্েেল, সব লিখে কাগজওয়ালাদের পেটের ভাত জুটছে রে ভাই---বলবে! কি তোদের বিছ্যেসাগর আর বেংগল অপেরা-ছুই নামকে এক করে এ: শালার কাগজ আমাদের বিশেষ সম্মান করলে

টিনের তলোয়ান্ব

[ বনুদ্ধরা কামিনীর প্রবেশ হাতে মুড়ির ঠোঙার রাশি তড়িতগতিতে যছ্ৃগোপালি ক।গজট! লুকিয়ে ফেলে ] বনু নাঁও, নাও, খেয়ে নাও বাবারা, বড্ড বেল! হয়ে গেল ! নটবর বাজারে যাবি না? নটবর জলদবারু ছাড়ছেন না। জলদ “জানে! তুমি মনোলোভ প্রকৃতির শোভ দানে আভা হৃদয়ে আমার ! কিন্তু আজ সব বিপরীত |” বনু জলদবারৃ, মহলা দিতে হলে ওপরে যাও না, পাচ ভূতের মধ্যে কি করে হয়? জলদ আমায় মাস্টার বললে, ঘরে বলতে হবে, মাস্টার শুনবে ! শুনছে দেখ ! নাক ভাকিয়ে ঘমোচ্ছে। মাঝে মাঝে ইচ্ছে হয় পোডার বেংগল অপেরা ছেড়ে দিই বনু জলদবাবু, নটবরকে ছেড়ে দাও। বাজার হয়নি এখনো! এতগুলে। লোক খাবে | জলদ যাঁতাহলে। নিজেই পড়ি। পায়চারি করে মৃদুস্বরে পড়ছেন। মাঝে মাঝে ভীম হত্ত সঞ্চালন করছেন 1 বনু (নটবরকে পয়সা দিয়ে ) এই নে। যা পারিস কিনে আন

নট আট আনা! আঁট আনায় কি হবে? বসু আস্তে, আস্তে সবাই শুনে ফেলবে মর ছোড়া উন- পাজুরে বরাখুরে

নট আট আনায় এত লোকের খাবার | বস্থ॥ ঘরে একট1 পয়সা নেই বেচবার মতন আর বিশেষ কিছু

টিনের তলোয়ার ২৯,

নেই, ল্যাম্পোটা বিক্রী হচ্ছে না। এবার কি যে বেচি! আচ্ছা, এই সিংহাসনটা তো আর কোনো পালায় লাগছে না

নট না, না, আমি বেচতে দেব না। তুমি শেষকালে যুবরাজ ময়ুরবাহনকে নাগ! সন্গিসি করে এস্টেজে পাঠাবে তার চেয়ে দল তুলে দিলেই তো হয়

বস্থ॥ আবাগির ব্যাটা! একটি চড়ে বদন বিগড়ে দেব। দল তুলে দিলেই তো হয় বেংগল অপের] ওঠে না, তুলে দেয়! যায় না। যা, বাজারে যা।

[ নটবরের প্রস্থান প্রিয়নাথকে দেখে _)

মহাশয়ের কি প্রায়াজনে আসা?

প্রিয় বেণিমাধববাবূর সংগে সাক্ষাতপ্রারথী

বন্থ॥ আর একটু বন্থন। বাৰু ঘুমোচ্ছেন। মহাশয়ের নাম?

প্রিয়॥ প্রিয়নাথ | প্রিয়নাথ মল্লিক গতকালও এসেছিলাম এবং নাম বলেছিলাম পরশুও এসেছিলাম এবং নাম বলেছিলাম তার আগের দিনও এসেছিলাম-_

জলদ এবং নাম বলেছিলেন বুঝলাম তো! এত জোরজারি করছেন কেন ? ( পড়েন )এই তে! শ্বাশান, মানবের চরম বিশ্রাম, স্থান। কত জীব আসে, পুনঃ পশে অসীম অনস্ত কালগ্রাসে ।”

বন্থর॥ যছুগোপালবাবু, দ্রিকে এস, খেয়ে নাও ঢুক করে।

যছু॥ কি এটা?

বস্থ গল ভাল থাকে জিরে, রমন, ঘি__এসব জাল দিয়ে তৈরী করেছি তোমায় গাইতে হয় বাবা, গল! ভাল রাখতে হয়

গোবর মাঝে মাঝে আমার মনে হচ্ছে হরবল্লভবার্‌ মরে গেছেন

ঙহ টিনের তলোয়ার

কামিনী কেন?

গোবর মুখে যে কাগজটা দিয়েছে দেখ। গত বুধবারের কাগজ অদ্দিন মুখ ঢাক। দিয়ে পড়ে আছে?

কামিনী এই গোবরটার সত্যিই মাথায় গোবর

বন্স॥ জাগা ওকে, ওষুধ খেতে হবে শুনছেন হরবলভবাবু! হরবল্লভবাবু, শুনছেন? ওষুধ খান!

হর॥ উকি হলে! আবার ?

বস্থ॥ এই যে, আপনার ঘুমের ওষুধ এনেছি।

হর॥ আমি শীঘ্রই উন্মাদ হবো। ত্বমু ভাঙিয়ে ঘুমের ওষুধ খাওয়াচ্ছে।

জলদ বইয়ে প্রেতাত্মার পার্ট করছে কে?

যু প্রেতাত্মার পাট আছে? কথা আছে?

জলদ চার পাতা। পোয়ার? তুই করছিস? না, তো পৃরুষ প্রেতাত্না

কামিনী আমাকে অত বড় পাট দেখে কেউ? আমার তিন নম্বর পাট। “হ্যা, মহারাণী” “না মহারাণী” এবং একবার শুধু “মহারাণী”। শাল! মাজা ধরে যায় এস্টেজে দাড়িয়ে থাকতে থাকত্বে। যত ভাল পাট সব মানদানুন্দরীর এবার হোলে! তো? মগীর এত জন্ধি। শাকের করাতের মতন কেটে চলে গেছে গ্রেট নেশনেলে

ষু॥ গ্রেট নেশনেলের অমৃত বসু মহা ধড়িবাজ

বস কেন, ধড়িবাজ কেন ?

টিনের তলোয়ার ২৩

যহু॥ মানদাকে হাত করে ফেলল বন্থর॥ আর আমাকে যে গ্রেট নেশনেল থেকে হাত করে এনেছিল 1 তোমরা, তার বেলায়? এবার শোধবোধ হয়ে গেল

কামিনী আমি দেখছি দিদি তোর আছে গ্রেট নেশনেলর গুমোর, আমাদের বুকে বসে ভাত রাধছিস।

বস্থ॥ আলবাৎ ত্মোর। নিশ্য় গুমোর করব, হতচ্ছাঁড়ি ভাতারখাগি। আমায় কে শিখিয়েছে জানিস? আমার গুরু অর্ধেন্দুশেখর মুস্তাফি মহাশয় আর বেলবাবু। সব দলাদলির তলাখীক্তি কথা রেখে দে, পুনকে বেটি নে ধর শালটা, জরি বসাতে হবে। চারদিকে চারটে কন্কা হবে।

[ ছু'জনে কণ্টিউম মেরামতির কাজে লাগেন ] বলদ তাহলে প্রেতাত্বা কে সাজছে?

হর॥। আরে দৃর, কানের কাছে তখন থেকে প্রেতাত্মা! প্রেতাত্মা

আলদ এই যে রয়েছে দেখুন না, “চিতামধ্য হইতে কাশ্মীরপতির প্রেতাত্মা প্রাকাশ |” তারপর প্রেতাত্মা বলছে, “বৎস রে, আমি রে জনক তো-_”

হর উঃ, কি সব ভীষণ নাটক নটে ছোড়া গেল কোথায়? তাম্বকটা সেজে দিয়ে ষাক

গোবর নটবর বাজরে গেছে।

[ সশবে প্রবেশ করলো মুদী ]

ম্নদী কই, সে বেটি গেল কোথায় ? (বসুন্ধরাকে দেখে ) এই ষে

মাগী,বাজারের বেশ্যা, তুমি কি চাও আমি থানাদ্বার ডাকি?

২৪ টিনের তলোয়া

জলদ কাকে কি বলছেন? আপনার সামনে বাংলার শ্রেষ্ঠা 'অতিনেত্রী, পুণ্যক্লোক অর্ধেন্দুশেখরের শিল্কা। বসুন্ধরা দেবী

মুদী আরে বান-যান মশাই, সব জানা আছে। ওর নাম আঙ্র। কস্বী। আর আপানাদের চরিত্তিরও জানা আছে আমার

জলদ মুখ সামলে কথা বোলো

বনু (জলদকে ধরে )কি করছো? পাওনাদার | টাঁকা পাবে --এমন করে না।

মুদী॥ মুদির দোকানে সত্তর টাকা বাকি রেখে বাবৃরা মদ খেয়ে বেশ্যা নিয়ে হল্লা করেন ছ্যা, ছ্যা !

বস্থু॥ শুনুন বাবু, দয় করুন, টাকাটা জোগাড় হয়নি এখনো

মুদী কিন্ত গিলে তো৷ চলেছ ঠেসে, গুর্রিশুদ্ধ সবাই মিলে

বস্থ॥ [প্রাণমাতানো হাসি মুখে এনে ]--তা খাবোনা ? পয়সা না থাকলে ক্ষুধা কি থাকবে না? আপনিই বলুন, রাতের পর রাত আমরা গান করি -খেতে হবে না ?

মুদী॥ ত!খাঁও গিয়ে যেখানে পারো, আমার ওপর ভর করছে কেন বাব ?

বস্থু। আপনি ছাড়া আমাদের কে দেখবে বাবা, পুলিশে খবরটা! দেবেন না। যে করে হোক আপনার টাকা শোধ করে দেবো। এবার যে নাটক ধরেছি, কলকেতা৷ জ্বলে যাবে, জুতোর মতন প্লেহবে! না হয় আপনাকে রোজ দুটি' করে পাশ দেবো।

সুদী লা-না, সব লোচ্চামি আমি দেখি না |

টিনের তলোয়ার ১৫

বনু কান্ঠহাসি সহ] লোচ্চামি কি বলছেন ! কাণ্তেনবাবুর পাল দেখতে ছোটলাটের পধস্ত কি বলে--সে কি আকুলি। যাক, নিদেনপক্ষে এই সেজবাতিটা নিয়ে যান। মুদী নিয়ে আমি কি করবে ? বন্দু সাঝের বেলায় দোকানে জ্বালবেন | ওপরে বেল-লগন, দেয়ালে দেয়ালগিরি আর মেজেতে এই নবাবী বাতির রোশেনাই কি মনোহর যে হবে আপনার দোকান নিয়ে যান, সত্তরের চারগুণ দাম এর সুদী এসব তো জন্মে দেখিনি বাবা, ভারি তো! এর কাচের ঢাকন1 কোথায় ? বন্থ কিসের কাচের ঢাকনা? মদী॥ এর ওপরে ঢাকন! থাকে না? বনু নাতো: মুদী। যে ছবি লটকে রেখেছ, তাতে তো ঢাকন1 আছে। বস্তুর ছবিতে তো! একটা মেয়েও রয়েছে আপনি কি চান এর সঙ্গে একটা মেয়েছেলে দেবো % সেটা কি একটা শিষ্টতা হবে ? [ ম্দী হতভম্ব হয়ে বাতি নিয়ে প্রস্থান করে? জলদ এই তো! দেশের অবস্থা ! দেশের শ্রেষ্ঠা অভিনেত্রী একটা নিরক্ষর মুদির কাছে হাতজোড় করছে ! প্রিয় হাতজোড় না করলেই হয় ? [ সবাই তাকায়, ঠিক চিনতে পারেনা ] যু এযেন কে?

ন্‌

২৬ টিনের তলোয়ার

হর নিশয়ত পোদ্দারের দোকানের লোক, কাপড়ের দাম চাঠতে এসেছে

বনু মহাশয়ের নাম?

প্রিয় না, না, হতে পারে না। চলতে পারে না। আমি এখানে ছাঁদন ধরে আসছি, ভাবে ভুলতে আপনারা পারেন না

বস্থ কি প্রয়োজনে যেন ছ'দিন ধরে মহাশয়ের আসা

প্রিয় বেণিমাধবের সংগে সাক্ষাৎ করতে! কবার বলব? লিখে দেব? রকম একটা নোটিশ লিখে গলায় ঝুলিয়ে রাখবো

| নীরবতা ]

বনু বন্টন, বম ভাঙলেই দেখা হবে

গোবর ॥. এই ধাধাটা খুব কঠিন 1 চার অক্ষরে নাম মোর অভিনয়

করি! কেউ চার অক্ষবের কোন কথা জানো, যার মানে আ'ভনেতা £ হর॥ চাশি-আহাম্মুক। [ গোবর সেটাই লিখিতে উদ্যত 1

যু দেত্হেরী, সেটাই লিখছে

গোবর হরদা বললেন যে।

জলদ দিদি, একবার তিনের ছয়ট। বলো না গে! আমার সংগে! ঘুম থেকে উঠে যদি দেখে এখনে! পড়তে পারছিনা, চাবকাবে

ধন্থু॥ তিনের ছয় কোনটা বাবু?

জলদ তোমার আর আমার 1 শয়নাগার। এই যে ধরো সাট।

বনু সাটের দরকার হবে কেন? বলো--এস বস, কি হেতু বিলম্ক এত? একি ভাব বংস নেহারি তোমার চিন্তার

টিনের তলোয়ার ২৭

কুটিল রেখা ললাটে অংকিত, জ্ঞোতিহীন হেরি জাখিতারা, উদ্মাদের পারা হয় মনে অনুভব, মুখকান্তি কেন বা মলিন তোর

জলদ মুখস্থ এর মধোই £

বন্থু॥ তাছাড়াকি ? পার্ট পেলেই আগে মুখস্থ করবে! না?

হর।॥ এর নাম বন্ুন্ধরা আমার হতভাগা! কিছুতেই মনে থাকে না।

বস্থ বলো--

জলদ “মলিন বদন? রাজমাতা, নাহি কি কারণ? কি পরি কর্তন”

কামিনী আর লব করে কি হবে *

জগঞদ মানে?

কামিনী অনুরাধাই নেই, ব্ নামবে কি করে? গ্রেট নেশনেলের ধাগিঘোচর! আমাদের সবনাশ করলে

বন অনুরাধা আসবেখন। সব কাণ্তেনবাবু দেখবেন | তোমাকে বাচা অত ভাবতে হবে না

হর ত1 অনুষ্ট

ঘঠু॥ কিহালা?

ছর পেয়ারা ঠিকই বলছ, গ্রেট নেশনেল আমাদের শনি ধর্মদাস সুরের চাকরি গেল, শ্যামপুকুরের কেষ্টধন বাঁডুয্যেও গ্রেট নেশানেল ছাড়লেন--ভাবলাম এবার বোধহয় থিয়েটার উঠলো। কোথায় কি! একা অর্ধেন্দুতে নিষ্কৃতি নেই, আবার গিরিশ ঘোষ গিয়ে জুটেছে। কি বই ধরেছে ওরা?

জলদ স্ুরেক্দ্র-বিনোদিনী

২৮ টিনের তলোয়ার

হর॥ কার লেখা? জলদ উপেন দাস, যিনি শরৎ-সরোজিনী লিখেছিলেন হর বোঝ অমৃতলালের মানে ভূনিবাবুর “হীরকচর্ণ” নামালো? 'গে সংগে লোকের বান ডেকে গেল আর আমাদের হিরোইন-উ নেই এখনো হীরকচুপণতে স্টেজের গপর আস্ত রেলগাডি চলছে! | ময়নার প্রবেশ শতচ্ছিন্ন নোংরা শাড়ি পরণে ] ময়না কাগ্ডেনবাবু কার নাম? জলদ কিচাহঠ? ময়ন1 সেটা ওকেই বলব। হর আমি লিখে দিতে পারি, আর এক শোচনীয় সংবাদের বাহিকা। এদলের শনির দশা চলছে বসত কাপ্রেনবাবু এখন ঘ্বুমোচ্ছেন বাছা, কি দরকার ? ময়না আমাকে আসতে বলেছিলেন. এয়েছি জলদ আদতে বলেছিলেন? তোমাকে? হর বললাম না, বিপধয় একে হয়তো নেশার ঘোরে বিয়ে করে এসেছে বস্থু কেন আসতে বলে;ছলেন ? ময়না সেট! তোমায় বলতে যাবে! কোন ছুঃখে লা বন্থ বোসো। উান এক্ষণি জাগবেন। ময়না তা বসছি। ; অভিনেতার সব অন্ত্দিকে ভীড় করে ফিসফিস কার | হর নিয়ে থানা-পুলিশ হবে আমি লিখে দিতে পারি

টিনের তলোয়ার ২৯

যু জাগাও, বাবৃকে জাগাও। ছদ্মবেশী নারা দম্ুযু হতে পারে।

জল পুলিশের চরও হতে পারে

গোবর পুলিশের বড়কতা ল্যান্বো সাহেব না তো? শুনেছি সে দ্রদ্পুবেশে ঘোরফেরা করে আর কাগজে পড়েছি, সে বলে অভিনেত' আর গাটকাটা একই মাল।

বনু পেয়ারা, তামুক সাজ, আমি বাবুকে জাগাবো। শ্নছেন, কাপ্রেনবাবু! উঠন। নানা লোক এসে বসে মাঞ্ছে দেখা করবার জন্য | [ কর্ণেট প্রবল গর্জন করে ওঠে]

বেণি॥ (ধড়মড় করে উঠে বসে ) হোমবা? আমি ভাবলাম ডাকাত পড়েছে।

হর ডাকাতই পড়েছে ডাকাতের ফিমেল সংস্করণ |

বেণি॥ কি?

বনু এষে।

বেণি॥ (দেখে কপাপ টপেন ) কাল রাতে এত টেমেছি '

বন্দু কি নলছেন ?

বেণি। বল্ভি এখনো নেশার দোর কাটোন। মনে হোলে! স্পষ্ট দেখলাম ওখানে কোনো ভীষণদর্শনা চামুণ্ডা বসে আছে। কিন্তু তা তো হতে পারে না। তো শোভাবাজারে আমাদের থেঢার, এখানে তো অমন কাণ্ড ঘটতে পারে না। মারে ঘ্বমোতে হবে।

[ শুয়ে পড়লেন]

জলদ ঘটেছে, ঘটেছে, সেটাই ঘটেছে তাজ্জব ব্যাপার!

বসু মেয়েটি বলছে ওকে আপনি আসতে বলেছেন।

বেণি॥ আমি? (এক ঝলক দেখে )জীবনে ওকে দেখিনি

তা টিনের তলোয়ার

ময়ন1 বারে, আমি ময়না

বেণি॥ ময়না হও, পায়রা হও, আমি জানিনা

ময়না বারে, ভোররাত্তিরে দেখা হলো, কত কথা কইলে-_-

বেণি॥ তমাক, তমাক কই? গড়গড়া দাও সক্কালবেলায় এত ঝক্কি পোষায় না। আর ন্ুর্পনখাকে এখন বিদেয় করো!

জলদ চলো, বেরোও এখান থেকে ঘরের ভেতর ঢুকে বসেছে দেখ! যেন রাজরাণী এলেন !

ময়না তোমাদের কাণগ্ডেনবাবু তে! দেখছি ভড়ুঙ্গে বজ্জাত। বলি মিনসে, গান শোনালাম মনে নেই?

বেণি॥ যাদূরহ। ছু'টে। পয়সা দিয়ে বিদেয় করে দাও

জলদ এই ধর পয়সা, এবার যা।

ময়না তোর মাগকে পয়সা খাওয়াস, শালা (পয়সা ছেড়ে) বেল্লিক কোথাকার! এঁ কাণ্ডেনবাবু শালা মিথ্যেবাদী আমাকে বললে থেটারে রাণী করে দেবে আগ এখন হাকিয়ে দিচ্ছে দেখ !

জলদ বেরো, বেরো, বেটি ভিথিরি_-

বেণি॥ ( হঠীৎ কিছু মনে পড়তে ) দাড়াও, থিয়েটারে পাট দেব বলেছিলাম?

ময়না ॥। তা নয়তো কি? গলাফুলে। পায়রা, আমাকে মিছামিছি দৌড় করালে আমার আলুর বাঁকা পড়ে আছে সেই ছাতু- বাবুর বাজারে।

বেণি॥ (উঠে আসেন) তুমি কি আমাকে অবলীলাক্রমে ভি-শার্পে গান গেয়ে শুনিয়েছিলে ?

টিনের তলোয়ার ৩১

ময়না সেগানলয়। “ছেড়ে কলকেত। বোন হবো পগার পার” _-এই গান।

বেণি॥। ( মুছু হেসে) হ্যা, হ্যা, একই কথা আমি এক্ষেলের কথ বলছিলাম-_সি শার্প, ডি, শার্প, যাক (মুখখানা কাছ থেকে দেখেন ) হু মন্দ নয়।

| কামানের গর্তন গোবর নার তোপ পড়ে গেল। বেণি॥ স্থন্ধ হও | এখানে জরুরী কাজ হচ্জে। াঙ্র এদিকে এস। | বেণি হাত মোছেন ময়নীর আচলে ]

বেণি॥ তাহলে (ফিসফিস করেন )--

ময়না (ভলদকে, ত্ষিকহানস্সিপহ )কি গো বাবু ? হাড়ালে না।

বেণি॥ (সরবে ) পেয়ারা, এই মেয়েছেলেটাকে লিয়ে যা কলতলায়। এইসব ন্তাকড়াগুলো৷ গা থেকে নামিয়ে পুড়িয়ে দিবি, নইলে রোগ ছড়াতে পারে তারপর সোড। আর গরমজ্ল দিয়ে এর গ] পুছে, রং-টং করে রাজকুমারী অন্ররাধার বেশ অলংকার পরিয়ে আনৃ।

কামিনী এই হতকুচ্ছিৎ মেয়েটা করবে অন্ররাধা ?

বসু তোকে যখন প্রথম নিয়ে আসেন কাণ্ডেনবাবু, তুই কি এর

চেয়ে সুন্দর ছিলি? ময়না (কামিনীকে ) তুই এখনো পোড়াকাঠি। কামিনী থাম্‌। বেণি নিয়ে যা। হ্যা, ঝামা দিয়ে সবাংগ ঘসবি | ময়লা ঝামা! আমার নাগবে।

৩১ টিনের তলোয়ার

বেণি যাও।

ময়না অন্ত লোক চান করালে আমার নজ্ঞা করবে

বেখি॥ এটা থিয়েটার। রাগ লজ্জা ভয় তিন থাকতে নয়, যাও

|; ময়না কামিনী অগ্রসর হয় ] কামিনী ছুস নে। ময়না তোকে ছুতে আমার বয়ে গেছে জনের প্রস্কান। ঘরে নীরবতা শুধু বেজির গড়গড়া

গুডুক গুড়ক শব্দ করছে 1

হর॥ মেয়েটি বুঝি দলভুক্ত হোলো ?

বেণি॥ ( কিছুক্ষণ নরবে তাকিয়ে থেকে আঁপনারকি মনে হয়?

হর |! কি অভিনয় করতে পারবে 1

বেণি॥ আপনি কি অভিনয় করতে পারেন ? ( নীরবতা )

জলদ ওই ভিখিরিটা হবে আমার হিরোইন ?

বেণি॥ তু।ন হবে ওর হিরে?! উঠে পড়ে লাগো, নইলে ওর অন্থবিধা ভবে

জলদ কিজাতও£/ আমি কায়েত, যার 'তার সংগে অভিনয় কারনা

বেণি দরজ্ঞ। খোল আছে, যেতে পারো ( নীরবত] )

যহু॥ গান গাইতে পারে তো?

বেণি। পারে।

যু নাচে?

বেণি॥ শিখিয়ে নেব

ইস অন্থুরাধ। বড় শক্ত পাট বাবু পড়ে দেখলাম, নাটকটা

টিনের তলোয়ার ৩৩

শেক্স্পীয়ারের হ্যামলেট আর ম্যাঁকবেথ মিশিয়ে মেরে দেয়] ওফিলিয়াই হচ্ছে অনুরাধা এমন জটিল-_ বেণি ( অধৈর্য স্বরে ) শিখিয়ে নেব বেণিমাধৰ চাটুযে বলছে, শিখিয়ে নেবে ! বেশিমাধৰ চাটুষ্যে পাথরে প্রাণপ্রতিষ্ঠা করতে পারে, কাগ্ঠপুত্তলির চক্ষু উন্লীলন করে দিতে পারে, গাধা পিটিয়ে ঘোড়া বানাতে পারে। এখানে কে অভিনয় করতে পারে? একজন ছাড়া-এ আঙ্র, সে করে অভিনয় আমরা জলে আক কাটি এই যে বেশিমাধব চাট্ুয্যে-_ ছেটিবেল। থেকে যাত্রায় গাইছি। বিশ বৎসর একাদিক্রমে অভিনয় করে বুঝলাম আমি অভিনয় করতে জানি ন1। প্রিয় ( হঠাৎ ) তখন অভিনয় ছেড়ে দিলেন না কেন ? বেণি। ততক্ষণে আমি বাংলার শ্রেষ্ঠ অভিনেতার খাতিতে প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছি ষে। [ সকলের মুছু হাসি) কিন্ত আমি শিক্ষক আমি অআষ্টা। আগি তাল তাল মাটি নিয়ে জীবন্ত প্রতিমা গভি। আমি একদিক থেকে ত্রন্গার সমান। আমি দেবশিল্লী বিশ্বকর্মী। আরম্তভিয়। মহ'তপঃ, মহামন্্বলে আকধিলা স্কাবর জংগম ভূত যত ব্রন্মপুরে শিল্পীবর ' যাহারে স্মরিল! পাইল তখনি তারে পল্পদ্ধয় লয়ে গড়িজেন বিশ্বকর্মী রাঙা পা ছু'খানি-

৩৪ টিনের তলোয়ার

প্রবল ঝনাৎ করে এই সময় জানালার কাচ ভেঙে ইট এসে পড়ে তার পিঠে বাইরে কোলাহল ] উচু) প্রিয় কি! কিহলো? বেণি॥ বিশ্বকর্মার পিঠে পাড়ার ছেলের] ইট মারলে ঢাল, ঢাল গ্ুলে। কোথায় ? [ গোবর ঢাল বার করে দেয় সকলকে ]"

নেপথে চীৎকার এই শাল] যাত্রাওলা। মেয়েছেলে নিয়ে স্কুন্তি করছ ?

প্রিয় এট কি হবে?

বেণি॥ ঘরে জানালা-বরাবর যার] বসে তারা ঢাল নিয়ে বলে।

₹ট ঠেকায় এটাই এতিহ্য।

নেপধ্যে চীৎকার এই শালা, এক্‌টো৷ করছিল? ভদ্রলোকের পাড়ায় বেশ্যার নাচের আখড়া বসিয়েছিস ?"

প্রিয় ॥। বেরিয়ে ছু ঘ। দিলে হয় না?

বেণি॥ না, হয় না। গোড়ায় দিয়ে দেখেছি-_-হিতে বিপরীত হয় ওরা পুলিশ ভাকে। আর ওই ট্যাশ সার্জেন্টরা আমাদেরই এরেস্ট করে চুপ করে ঢাল বাগিয়ে বসে থাকো ভাল কথা কে? কার সংগে কথা কইছি ?

বন! পাওনাদার হবে। মহাশয়ের নামট1 ষেন কি?

প্রিয় (জলে শুঠে ) ৰলে কোন লাভ নেই ভেবে দেখলাম নাম বলে এখানে কোনো লাভ নেই আপনাদের কিছুই মনে থাকে ন!। জানতে ইচ্ছে করে স্টেজে উঠে পার্ট মনে থাকে?

টিনের তলোয়ার ৬৫

বেণি॥ মহাশয় কি কুইন ভিক্টোরিয়ার নাতৃজামাই যে আপনার নাম মনে রাখতে হবে? মহাশয় কি গায়ত্রী যে জপ করতে হবে? মহ।শয়ের কি ধারণা আমাদের কাজকর্ম নেই ?

প্রিয় কাজের নমুনা তো দেখছি দ্বুমোচ্ছেন বেল। ন'টা পধস্ত।

[ সকলে সচকিত ]

জলদ ছোড়। বাচলে হয়।

হর দাাটিও না, ঘাটিও না, পাওনাদার হতে পারে

গোবর আচ্ছা, ছদ্মবেশী ল্যান্বোসাহেব নাতো?

যছু ছোড়ার মাথায় ল্যান্বে! সাহেব ভর করেছে।

বেণি তাহলে দেখা যাচ্ছে আমার খাওয়া, ঘুমানো, জান' আচমন সব মহাশয়ের অনুমতি সাপেক্ষ মহাশয় হন কেটা?

প্রিয় আমার নাম প্র্িয়নাথ মলিক--শুপলেন দিদি ?

বসু হ্যা, হ্যা, প্রিয়নাথ মল্লিক

প্রিয় যাক, মনে পড়েছে।

বেণি॥ নামটা চেনা চেন! মনে হচ্ছে মহাশয় কি জাত £

প্রিয়! ্বর্ণবাণিক।

বেণি যে মুছুর-নাছর খচ্চরটি দলের মালিক, সে শালাঁও ্বর্ণ- বণিক। মহাশয় তার কিছু হন?

প্রিয় সার্টেনলি নট।

বেণি॥ কি বললেন ?

হর বলছে, সার্টেনলি নট- নিশ্চিত না।

বেণি॥ তা মহাশয়ের করা হয় কি?

প্রিয় আমি একজন জিনিয়াস

৩৬ টিনের তলোয়ার

বেণি॥ এ?

হর॥ বলছে প্রতিভা ইনি এক-ইয়ে প্রতিভাধর কুলমার্তগু

বেনি॥ তামশায় যর্দি এমনই গোকুলের ঘাড় হবেন, তবে হেথায় কি উদ্দেশ্যে আগমন ?

প্রিয় এসেছিলাম আপনাদের নাটক শেখাতে (সকলে স5চকিত) কিন্তু ছয় দিবসকাল এই করাসের ওপর অপেক্ষমান থেকে আমি একুলস্টেড

হর।॥। বলছে এক্সস্টেড, মানে পরিশ্রাস্ত ক্লান্ত

বেণি॥ মহাশয় বাংলার গ্যারিককে নাটক শেখাবেন? মহাশয় কি বাংলার শেক্ষপীর ?

প্রিয় আমি নাটক শিখেছি হিন্দু কলেজে ক্যাপ্টেন পেণ্ডেল বেরির কাছে আমি অভিনয় করেছি ইংরেজীতে পার্ক-স্ীটের স। স্ুলী থিয়েটারে আমি বহুদিন যাবৎ লক্ষ্য করেছি আপনাদের কদধ জীবনবোধ বঞ্তিত নাটকের মিথ্যা আড়ম্বর। বাহরে পুরাতন সমাজ বিধ্বস্ত হচ্ছে আর নাটাশালায় আপনার" কাশ্রের বুবরাজের মুর্খ প্রেমের অলীক স্বর্গ রচনা করে চলেছেন

বেণি (হঠাৎ মনে পড়ে) কাল রাত্রে একজন মেথর আমকে ঠিক এই কথাগুলোই বলেছিল। একে মুড়ি দাও। মহাশয়ের মুড়ি চলবে ?

প্রিয় হ্যা!) চলবে আই এম হাংরি

হর॥ বলছে আই এম হাংরি, মানে মামি হই ক্ষুধার্ত !

বেণি॥। আঃ, হরবাবু, ইংরিজি যে আমি একেবারে জানি না তা নয়। হাঙোরি মানে যে হাঙরের মতন ক্ষুধার্ত তা আমি জানি

টিনের তলোয়ার ৩৭

বস্থু খাও ভাই, মুড়ি খাও। সকালে না খেয়েই বেরিয়েছো বুঝি ?

প্রিয় ভ্যা।

বনু ॥। তোমার বউ, মা বাব! না-খেয়ে বেরুতে দিল ?

প্রিয়! বিয়ে করিনি বাপ-মা আমায় দেখতে পারে না। বাপ বলে গদীতে বসে বসে ওর লোহার ব্যবসা দেখতে হবে ওল্ড ফুল্স। মাঝে মাঝে আমায় শিকল এটে বন্দী করে রাখে!

বেনি প্রিয়নাথ মল্লিক নামট1 আমি আগে কোথায় শুনেছি !

হর আমারো কেমন পরিচিত মনে হচ্ছে

বেণি শুনুন! মহাশয় কি কখনো ঘরে চুরি করতে এসে ধর! পড়েছিলেন? (প্রিয় বিষম খায়)--ন1, তার নাম ছিল গ্রিয়রঞ্জন

হর মহাশয়ের নামটা আগে কোথায় শুনেছি বলুন তো! ?

প্রিয় সেটাই বক্তব্য ছিল। ছ”দিন ধরে সেটাই আমার নিবেদন ছিল মহাশয়দের খুরে। অধম একটি নাটক দিয়ে গিয়েছিল কাণ্তেনবাবৃকে পড়তে | সে নাটকট। শাহেনশার কেমন লেগেছে সেটা জানতেই সপ্তাহব্যাপি অধমের দরবারে উপস্থিতি

বেণি হ্যা, হ্যা, সে নাটকটাতো।? পালার প্রথম পাতায় প্রিয়নাথ মল্লিক নামট। লেখা ছিল, বললাম ন1.হরবারু ?

হর কখন বললেন ?

গোবর আপনি তো ওকে চোর ভাবলেন

যু চোপ,।

প্রিয় কেমন লেগেছে নাটকটা ?

বেণি॥ বেশ। ইয়ে নানা সম্ভাবনায় পরিপৃর্ণ। প্রথম ছুই

৩৮ টিনের তলোয়ার

কের গতি কিছু শ্লথ, কিন্ত তৃতীয় অংকের দ্বিতীয় গর্ভাংক

হইতে নাটকের গতি দুর্বার হইয়। উঠিয়াছে। ( দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে ) --সব নাটকেই তাই হয়।

প্রিয় আমার নাটকে অংকভাগ নেই অংক-গরভাংক সধ কৃত্রিম ভেদাভেদ নেই আমার নাটক দশ অধ্যায়ে বিভক্ত, একাধারে নাটক নভেল

বেণি॥ এই মরেছে।

প্রিয় স্পষ্টতই প্রতীত হচ্ছে, আপনি নাটক পড়েন নি। একমাস ফেলে রেখেছেন, পড়েন নি। ডিসগাস্টিং !

হর বলেছে ডিসগাস্টিং, মানে--ইয়ে আমার শরীর রীরী করিতেছে।

প্রিয় এনাফ, এনাফ !

হর বলছে, যথেষ্ট হইয়াছে, যথেষ্ট হইয়াছে

প্রিয় আমার নাটকট? ছিল পলাশীর যুদ্ধ, বৃটিশ দস্থ্য জালিয়াং ক্লাইভের মুখোশ উন্মোচন

বেণি॥ হাতকড়া না! পড়ে!

প্রিয় আপনাদের দিতে যাওয়াই ভূল হয়েছিল। ফিরিয়ে দিন ম্যানুস্কিপ্ট : পাঙুলিপি ফেরৎ দিন।

বেণি॥ হ্যা, এই দিই | হরবারু, দিন তো, ওর ম্যানুক্রিপটা দিয়ে দিন।

হর॥। কোথায় পাব?

বেণি॥ (প্রিয়র প্রতি এক হাসি নিক্ষেপ করে) যেখানে থাকে সব কাগজপত্র, সাট, বাজারের হিসেব, আমার তালতলার চটিজোড়া--( থেমে যান, হাসেন )।

টিনের তলোয়ার ৩৯

বনু সেনটবর না এলে হবেনা (প্প্রিয়কে ) ছোড়া বাজারে গেলে আর আসেনা, বুঝলে ভাই একটু বোসো। আর একটু মুড়ি দিই? প্রিয় না আর লাগবে না। গোবর ভাগ্যিস মশায় না বললেন ঘরে মুড়ি বাড়ন্ত, আমি দেখে এসেছি যছু॥ চোপ। [প্রিয় খালি ঠোগাটা ফেলতে গিয়ে হঠাৎ সেটা চোখের কাছে টেনে আনে, তারপর এক তীক্ষ চীৎকার তার বুক ফেটে বেরিয়ে আসে ] প্রিয়॥ “পলাশীর যুদ্ধ, পৃষ্ঠা তিনশত একুশ” [ কলে সচকিত। প্রিয় ঘুরে দ্বুরে অন্যদের হাতের ঠোস্ত' দেখে, একট] পরিত্যক্ত ঠোডা কুড়োয়, আবার মর্মভেদী চীৎকার ] “পলাশীর যৃদ্ধ, পৃষ্ঠ! তিনশত চৌদ্দ” ! আমার অমন নাটক দিয়ে মুড়ির ঠোঙ বানিয়েছে মাই মাস্ট্ারলীদ। আপনার নিজ নিজ জননীর চিতা থেকে হুকোর কলকে ধরাতে পারেন! বাধেরিয়ানস্‌ ! ভ্যাগ্ডাল্স্‌ ! হর বলছে, বার্ধেরিয়ানস্‌ মানে ব্র। আর বলছে ভ্যাগাল্স্‌ মানে ডিকশেনারি দেখতে হবে প্রিয় ॥। আই হ্যাভ বিন ইনসালটেড হর আমি হইয়াছি অপমানিত প্রিয় আমারই দোষ! হর আমারই দোষ--ন! না এতে। বাংল!

6 টিনের তলোয়ার

প্রিয় আমি বেনাৰনে মুক্তো ছড়িয়েছি আই হাভ কাষ্ট পার্লস্‌

ধিফোর এস্টাই ফুল অফ সোয়াইন হাপাচ্ছে ভীষণ ক্রোধে ]

হর।॥ এক ত্বর শৃকরের সম্মখে মুকুতা ছড়াইলাম

বেণি॥ আঙর, তুনি তর নাটক দিয়ে ঠোঙা বানিয়েছ কেন ?

বনু আমি কি করে জানবো কাণ্চেনবাবু ? আস্তাকুড়ে পড়েছিল, সেখানে

[ থেমে জীত কাটেন

প্রিয় ॥। আস্তাকুড়!

বন্থু॥ তুমি কিছু ভেবো না বাপু, এখুনি পাতা মিলিয়ে আবার ঠিক করে দিচ্ছি এই গোবরা, কুড়ো, কুড়ো পাতা, খোল আবার, ছেড়ে না যেন প্রিয়বাবু রাগত হয়েছেন

[ সকলে ব্যস্ত হন ]

গোবর আমার হাতে পৃষ্ঠা তিনশত পনেরো

যু আমার তিনশত বাইশ

বস্ম॥ কুড়ি কোথায় গেল? এইখানে রাখলাম এক্ষণি! এই তো। তেল লেগে গেছে, পড়া যাচ্ছে না, তাই-_

[ থামেন, প্রিয়কে হাসিতে তৃষ্ট করার প্রয়াস পান ]

প্রিয় তিন বংসরাধিক কাল দেহের রক্ত জল করে ইতিহাসের সুল গ্রন্থাদি ঘেটে লিখলাম সেটা আস্তাকুড়ে ফেলেছে, তেল টেলেছে, মুড়ি ভরেছে। ডুয়েল লড়বো। নেম ইয়োর ওয়েপন।

টিনের তলোয়ার ৪১

হন কি অস্থ্রেলড়িবে তাহার নাম কহ।

বেণি॥ মহাশয়ের কাছে কি নাটকের কাপি নেই?

প্রিয় না। আর ষে ভাবে আমাকে অপমানিত করা হলো, নাটক পড়। দর স্থান, আস্তাকুড়ে নিক্ষেপ করে-_

বন্থ॥ এই লও খানিকটা মিলেছে [ কয়েকট। পাতা৷ দেন ]

প্রিয় ড্যামনেশন

সকলে ভড়কে যান ]

হর নরকস্থ হওন। হে-হে--মাই বয় ভূুলোনা-_ফেইপিওর্স আর

দি স্টেপিং স্টোনৃস্‌ অফ সাকসেস। [ প্রিয়র জ্বলত্ত দৃষ্টির সামনে পিছু হটেন ]

প্রিয় আই এম রুইণড | [প্রিয় ম্বখ ঢেকে বসে থাকে ]

হর [ম্বৃহ্ন্ধরে | আমি ধ্বংসপ্রাপ্ত

বন্থ॥ সকাল থেকে কিছু খায়নি কিনা, তাই অমন রেগে যাচ্ছে। বাপ-মারও বলিহারি বাবা! এমন হীরের টুকরে! ছেলে, সায়েবদের কালেজে পাশ দিয়ে বেরিয়েছে। কথায় কথায় ইংরিঞ্জি জাইন কাড়ছে, তাকে খেতে দেয় ন1।

| পাখা নিয়ে বাতাস করতে থাকেন ]

গে।বর শীতকালে বাতাস কোরে না।

প্রিয় [ভগ্নস্বরে ] ভেবেছিলাম আপনাদের রিফরমেশনের আলোকে টেনে আনবে1। ভেবেছিলাম ভারতের স্বাধীনতা মন্ত্রে দীক্ষা দেব ( সঙ্জোরে ) এবং আমিই পারবে! মাইকেল চলে গেছেন, দীনবন্ধু গৃত হয়েছেন--

বেপি॥ [সমর্থনের স্বরে ] কালিদাসও আর নেই।

টি--৩

৪২ টিনের তলোয়ার

প্রিয় ।॥ আমি ছাড়া কেউ নেই এখন কিন্ত যারা দেখতে চায় না, তাদের দেখাবো কি করে? অন্ধকারের জীবেরা আলে সইতে পারবে কেন? | বেণির ধৈর্যচ্যুতি হয় এবার ]

বেণি দেখ ছোকরা, অনেকক্ষণ থেকে তোমার দাহুড়েপন1 দেখছি। সব শাল] বারফটক1। বাবুর দল মদ খেয়ে রিফরমেশন করতে আসে।

বনু কি বলছেন বাবু, বেচারার নাটকট1 সবাই মিলে নষ্ট করলাম, আবার ওকে টইয়ে দিচ্ছ ?